কম্পিউটার কেনা বেচা

মূলধনের প্রয়োজন হবে না। বাংলাদেশের বিভিন্ন কম্পিউআপনি চাইলে কম্পিউটারের ব্যবসা করতে পারেন। এর জন্য তেমন বেশি টারের পার্টস এর দোকান রয়েছে যারা শুধু কম্পিউটারের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বিক্রি করে থাকে। সর্বপ্রথম তাদের কাছ থেকে আপনাকে কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ কিনতে হবে এবং কম্পিউটারের পিসি সেটআপ করতে হবে।

একটি কম্পিউটারের পিসি সেটআপ করতে সর্বোচ্চ আপনার 5 থেকে সাড়ে 5 হাজার টাকার মতো খরচ পড়বে এবং একটি মনিটর আপনি দেড় থেকে দুই হাজার টাকার মধ্যে কিনতে পারবেন। এটি আপনি সর্বনিম্ন 10 থেকে 12 হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবেন। বিভিন্ন কোচিং সেন্টার এবং কম্পিউটারের দোকান গুলোতে সেকেন্ড হ্যান্ড কম্পিউটার বেশি চলে। তারা তাদের শিক্ষার্থীদের জন্য 30- 35 হাজার টাকার কম্পিউটার না কিনে 8 থেকে 10 হাজার টাকার মধ্যে কম্পিউটার কিনে শিক্ষার্থীদের দিয়ে থাকে। এ বিষয়টি অনেকেই জানেনা।

আপনি এই বিষয়টিকে কাজে লাগিয়ে হয়ে উঠতে পারেন স্বাবলম্বী। এজন্য হতে হবে আপনাকে দূরদর্শী সম্পন্ন ব্যক্তি। যে ভবিষ্যৎ সম্পর্কে পূর্বানুমান করতে পারবে। কম্পিউটার এখন প্রায় প্রত্যেক ঘরে ঘরে লক্ষ্য করা যায়। আপনি যদি দোকানের সাথে চুক্তি করে রাখেন যে আমি প্রতিমাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ কম্পিউটার নিয়ে ব্যবসা করব তাহলে আপনাকে তারা বাকিতে প্রদান করবে। আপনি বিক্রি করার পর পণ্যের মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। তাই আমি বলবো আপনি সেকেন্ড হ্যান্ড কম্পিউটার কেনাবেচার করে আপনার জীবিকা নির্বাহ করতে পারেন।

বাংলাদেশে বর্তমানে লাইনে কাজ করে এমন লোকের সংখ্যা 50 শতাংশের বেশি। তারপর থেকেই কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকে। আপনার টার্গেট থাকবে সেই ফ্রিল্যান্সারগুলো যারা অনলাইনে কাজ করে থাকে। তারা প্রতিনিয়ত ঐ কম্পিউটার চেঞ্জ করে থাকে। বিভিন্ন কনফিগারেশনের কম্পিউটার তাদের প্রয়োজন পড়ে। আপনি তাদের চাহিদা মতো কম্পিউটার সরবরাহ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। সর্বপ্রথম আপনি দুইটা কম্পিউটার দিয়ে শুরু করতে পারেন আপনার ব্যবসা যেখানে আপনার ইনভেসমেন্ট প্রয়োজন হবে মাত্র 16 থেকে 20 হাজার টাকা।

কোন পেশাকেই খাটো করে দেখবেন না কারণ বেকার বসে থাকা লজ্জার কিন্তু কোন পেশায় জড়িত থাকা লজ্জার নয়। আমরা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে প্রতিনিয়ত এই ধরনের বিভিন্ন আইডিয়া প্রকাশ করে থাকি যেগুলোকে কাজে লাগিয়ে আপনার মত মানুষ প্রতিষ্ঠিত হতে পারে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *